সব

প্যারোডি রস

ফেসবুক স্ট্যাটাসের শিল্পগুণ

সঞ্জয় সরকার
প্রিন্ট সংস্করণ

তোমার যাহা বলিবার প্রয়োজন, স্ট্যাটাসে তা যদি প্রকাশ করিতে না পারিলে, তবে স্ট্যাটাস বৃথা হইল। অর্থব্যক্তির বিশেষ কোনো নিয়ম নাই, তবে দুই একটা সংকেত আছে।

যে কথাটিতে তোমার কাজ হইবে, সেই কথাটি ব্যবহার করিবে। তাহা শুনিতে ভালো নয়, কি বাংলিশ কথা, এরূপ আপত্তি গ্রাহ্য করিয়ো না। কোন ফেসবুক সেলিব্রিটি কী ভাষা ব্যবহার করিয়া রাতারাতি বিখ্যাত হইয়া গিয়াছে এইসব নিয়া ভাবিয়ো না। তোমাকে নিজের ভাষার স্টাইল রপ্ত করিতে হইবে। অন্যের স্টাইল কপি-পেস্ট করিয়া তুমি সাময়িক সময়ের জন্য সেলিব্রিটি হইতে পারিবে; কিন্তু লাখো তরুণ-তরুণীর মনে ঠাঁই করিয়া নিতে চাহিলে তোমাকে কিছু নিয়ম মানিয়া চলিতে হইবে। মনের ভাব ঠিক ব্যক্ত হয়, সেই কথাই ব্যবহার করিবে। উদাহরণসহ কয়েকটি নিয়ম তোমাকে বলিয়া দিতেছি।

তুমি ‘ফ্রান্স/ইতালি/উগান্ডাকে’ কেমন আছো জিজ্ঞেস করিলে। ফ্রান্স/ইতালি/উগান্ডা দেশের নাম। এসব শব্দের প্রকৃত অর্থ হইল ‘ফ্রেন্ডস’। ইহা ইংরেজি শব্দ। কিন্তু এই শব্দটার একটু দোষ আছে। এই শব্দ ব্যবহার করিলে তোমার দুটি দোষ প্রমাণিত হয়। প্রথমত, ইহা ব্যবহার করিলে বোঝায় যে তুমি এখনো ফেসবুকে নতুন। ফেসবুকের ট্রেন্ড এখনো তুমি বুঝিয়া উঠিতে পারো নাই। ইহার ফলে কেউ তোমাকে পাত্তা দিবে না। দ্বিতীয়ত, ফ্রেন্ডের বাংলা অর্থ বন্ধু। ‘ফ্রেন্ডস’ বলিতে তুমি কাকে বুঝাইয়াছ সেইটা স্পষ্ট না। অন্য দিকে ‘ফ্রান্স/ইতালি/উগান্ডা’ ব্যবহার করিলে বন্ধুবান্ধব তো বটেই, অনলাইন-অফলাইন জগতের সকল বন্ধুকেই বোঝানো যাইবে। কেননা ইহার অর্থ সবাই বুঝিবে, বহুল ব্যবহার আছে। অর্থেরও কোনো গোল নাই।

আরেকটা কথা মনে রাখিবে, তোমার মতো অনেকেই ফেসবুক সেলিব্রিটি হইবার জন্য লাফালাফি করিতেছে। তারা সেকেন্ডে সেকেন্ডে স্ট্যাটাস প্রসব করে। তোমার স্ট্যাটাস যাহাতে পাবলিক আগ্রহ আগ্রহ লইয়া পড়ে সে জন্য কিছু কৌশল অবলম্বন করিতে হইবে। স্ট্যাটাসের প্রথম বাক্যটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কয়েকটি বাক্য বলিয়া দিতেছি। মাঝে মাঝে জীবনে দাঁত, কান, নাক, গলা, চোয়াল শক্ত করিয়া হইলেও তাহাকে ‘না’ বলিয়া দিতে হয়। তোমাকে কেউ ছাড়িয়া গিয়াছে বলিয়া ভাবিবে না, তোমার কেউ নাই। সে হয়তো তোমার জীবনের ভুল মানুষ ছিল। সত্যিকার ভালোবাসার মানুষ কখনো হাত ছাড়িয়া দিতে পারে না। একটি পরীক্ষার ফল কখনো তোমার জীবনের মাপকাঠি হইতে পারে না।

স্ট্যাটাসের শিল্পগুণ বাড়াইতে হইলে তোমাকে আরও কিছু বিষয় খেয়াল রাখিতে হইবে। খেয়াল রাখিবে স্ট্যাটাস যেন ‘continue reading’-এর আগে শেষ হইয়া যায়। লম্বা লম্বা স্ট্যাটাস পড়িবার মতো সময় সকল লোকের থাকিবে না। যুগের চাহিদার সহিত সামঞ্জস্য রাখিয়া নতুন নতুন শব্দ ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক। যেমন: হেই গাইজ, কুল, ডুড। আজকাল শুধু লেখাশৈলী ভালো হইলে চলিবে না। টপিকে বৈচিত্র্য না আনিলে শিল্পগুণ কমিয়া যাইবে। ব্যক্তিগত, সামাজিক, পারিবারিক, জাতীয়, আন্তর্জাতিক—সব বিষয়ে লিখিতে হইবে। খেলাধুলার কথা নাহয় বাদই দিলাম! সাম্প্রতিক বিষয় লইয়া জোরালো স্ট্যাটাস দিতে হইবে। তোমার স্ট্যাটাস পড়িয়া যেন মনে হয় তুমি একাধারে শিক্ষক, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, ক্রিকেট ও ফুটবল কোচ, র‍্যাবের গোয়েন্দাপ্রধান, শেয়ারবাজার ও সিনেমা বিশেষজ্ঞ, সমাজ বিশ্লেষক, উন্নয়নকর্মী ইত্যাদি।

স্ট্যাটাস দিবার আরেকটি বড় শিল্পগুণ হইল সময়জ্ঞান। তুমি দুপুরবেলা স্ট্যাটাস দিলে; সমাজ উদ্ধারকারী কালজয়ী স্ট্যাটাস হইলেও সেটাতে লাইক-কমেন্ট পড়িবার সম্ভাবনা খুবই কম। ফলে সেলিব্রিটি হইবার সাধ অধরা থাকিয়া যাইতে পারে। স্ট্যাটাস দিতে হইবে রাত ৯টা থেকে ১০ ঘটিকার মধ্যে। তাহার পর দেখিবে কীভাবে হু হু করিয়া লাইক-কমেন্ট পড়িতে থাকে।

প্রাঞ্জলতা স্ট্যাটাসের বড় গুণ। তুমি যাহা লিখিবে, লোকে পড়িবামাত্র যেন তাহা বুঝিতে পারে। যাহা লিখিলে, লোকে যদি তাহা না বুঝিতে পারিল, তবে লেখা বৃথা। কিন্তু অনেক পাতি ফেবু সেলিব্রেটি এ কথা মনে রাখে না। কতকগুলি নিয়ম, আর কতকগুলি কৌশল মনে রাখিলে স্ট্যাটাস খুব প্রাঞ্জল করা যায়। দুই রকমই বলিয়া দিতেছি।

একটি বস্তুর অনেক নাম থাকিতে পারে, যেমন ‘পিক’-এর অর্থ ছবি, ইমেজ, ফটো, স্থিরচিত্র, আলোকচিত্র ইত্যাদি। এখন ‘পিক’ অর্থ বুঝাইতে কোনটি ব্যবহার করিব? যেটি সবাই জানে, অর্থাৎ পিক। যদি বলি, ‘আলোকচিত্রটি তুলিয়াছে আমার প্রিয় বন্ধু’ তবে অধিকাংশ পাঠক তোমার কথা বুঝিবে না। যদি বলি যে, ‘পিকটি খিঁচিয়াছে আমার জানেজিগার দোস্ত’, তাহা হইলে সকলেই বুঝিবে।

অনর্থক কতকগুলো রোমান শব্দ লইয়া বাক্যের আড়ম্বর করিয়ো না, অনেকে বুঝিতে পারে না। যদি বলি, ‘Amar a duti cokh pathar to noy’, তোমরা কেহ কি সহজে বুঝিবে, ডুড? অনেকে বুঝিতে পারো, ‘আমার এ দুটি চোখ পঁাঠার তো নয়’। আর যদি বলি, ‘আমার এ দুটি চোখ পাথর তো নয়’, তবে কে না বুঝিবে?

অনর্থক কথা বাড়াইয়ো না। অল্প কথায় কাজ হইলে, বেশি কথার প্রয়োজন কী? ‘এবংবিধ বিবিধ প্রকার ফ্যান্টাসির বশীভূত হইয়া, যখন মেয়েরূপী ছেলেটি তাহার এইচপি ব্র্যান্ডের ল্যাপটপে বসিয়া তাহার ইমেইল আইডি ও বিশ ডিজিটের পাসওয়ার্ড দিয়া ফেসবুকে লগইন করিয়া তাহার ভুয়া আইডি হইতে আমাকে একখানি ফটোগ্রাফ প্রেরণ করিল, তখন আমি সেই আইডিকে ব্লক করিয়া অন্য মেয়েদের আইডি সন্ধান করিতে লাগিলাম।’ এরূপ না বলিয়া যদি বলি, ‘এইরূপ অনেক বিষয়ে ফ্যান্টাসি নিয়া মেয়েরূপী ছেলেটি আমার নিকট একখানি পিক পাঠাইল। তখন তাহাকে ব্লক করিয়া আমি অন্য মেয়েদের আইডির সন্ধান করিতে লাগিলাম’ তবে অর্থের কোনো ক্ষতি হয় না, অথচ সকলে সহজে বুঝিতে পারে।

জটিল বাক্য রচনা করিয়ো না। অনেক বাক্য একত্র করা হইলে বাক্য জটিল হয়। যেখানে বাক্য জটিল হইয়া আসিবে, সেখানে জটিল বাক্যটি ভাঙিয়া ছোট ছোট সরল বাক্য সাজাইবে। উদাহরণ দেখো:

‘দিন দিন এডুকেশন বোর্ডের সকলের যেরূপ শোচনীয় অবস্থা দাঁড়াইতেছে, তাহাতে অল্পকালের মধ্যে তাহাদের আগে পরীক্ষার্থীরা কোয়েশ্চেন পেপার পাইবে অ্যান্ড দ্যাটস হোয়াই আমাদের এডুকেশন সিস্টেম যে বিশেষভাবে হ্যাম্পারড হইবে, এরূপ থিংক করিয়াও আমাদের সো কল্ড সেলিব্রিটিরা তাহার সলিউশন ফাইন্ড আউট করিবার জন্য কোনো কেয়ার করেন না, দেখিয়া উই আর ভেরি স্যাড ফর দ্যাট।’

এই বাক্য অতি জটিল। সহজে বোঝা যায় না। কিন্তু ছোট ছোট বাক্যে ইহাকে বিভক্ত করিয়া লইলে কত সহজ হয় দেখো—‘দিন দিন এডুকেশন বোর্ডের সকলের শোচনীয় অবস্থা দাঁড়াইতেছে। যেরূপ শোচনীয় অবস্থা দাঁড়াইতেছে, তাহাতে অল্পকালের মধ্যে শিক্ষার্থীরা তাহাদের আগে কোয়েশ্চেন পেপার পাইবে। দ্যাটস হোয়াই আমাদের এডুকেশন সিস্টেম হ্যাম্পারড হইবে। অনেক সেলিব্রিটি ইহা থিংক করিয়াছেন। বাট থিংক করিয়াও তাঁহারা ইহার সলিউশন ফাইন্ড আউট করিবার জন্য কোনো কেয়ার করেন না। উই আর ভেরি স্যাড ফর দ্যাট।’

একটি বাক্যের স্থানে ছয়টি হইয়াছে। কিন্তু বুঝিবার আর কোনো কষ্ট নাই।

 

 

 

ক্যাম্পাসে প্রতিভার বিড়ম্বনা ও যন্ত্রণা

ক্যাম্পাসে প্রতিভার বিড়ম্বনা ও যন্ত্রণা

অণু বিজ্ঞান কল্পগল্প

অণু বিজ্ঞান কল্পগল্প

যেমন হয় রুমমেটরা

যেমন হয় রুমমেটরা

না বলা কথাগুলো

না বলা কথাগুলো

মন্তব্য ( ২ )

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

নজরুলের রসিকতা

চলতি রস নজরুলের রসিকতা

কাজী নজরুল ইসলাম ছিলেন বিংশ শতাব্দীর অন্যতম জনপ্রিয় অগ্রণী বাঙালি কবি,...
২২ মে ২০১৭
‘রিঅ্যাক্ট’ করুন বুঝেশুনে

চলতি রস ‘রিঅ্যাক্ট’ করুন বুঝেশুনে

আজকাল ফেসবুকে দেখা যায়, স্ট্যাটাসে অনুভূতি প্রকাশ পায় এক রকমের অথচ কেউ কেউ না...
২২ মে ২০১৭
প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর উপায়

মলাট রস প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর উপায়

প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর কয়েকটি যুগোপযোগী উপায় বের করলেন মাহবুব আলম, এঁকেছেন আবু...
২২ মে ২০১৭ মন্ত্যব্য
default image

যাপিত রস স্বপ্ন সেটা নয়...

‘স্বপ্ন সেটা নয় যেটা মানুষ ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে দেখে, স্বপ্ন সেটাই যেটা...
২২ মে ২০১৭ মন্ত্যব্য
অন্যান্য
বিশ্বে মোটা চালের দাম বাংলাদেশেই সবচেয়ে বেশি

বিশ্বে মোটা চালের দাম বাংলাদেশেই সবচেয়ে বেশি

মোটা চালের দাম বিশ্বে এখন বাংলাদেশেই সবচেয়ে বেশি। এরপরই আছে পাকিস্তান, তাও...
৭ ঘন্টা ১ মিনিট আগে মন্ত্যব্য
শুরু হলো পবিত্র মাহে রমজান

শুরু হলো পবিত্র মাহে রমজান

শুরু হলো পবিত্র মাহে রমজান। মুসলমানদের কাছে এই মাস অত্যন্ত ফজিলতপূর্ণ। গতকাল...
৭ ঘন্টা ৫ মিনিট আগে
তামিম-ঝড়ের পরও এমন হার!

বাংলাদেশ–পাকিস্তান প্রস্তুতি ম্যাচ তামিম-ঝড়ের পরও এমন হার!

এজবাস্টনে কাল দুটো ঝড় উঠল। প্রথমটা তুললেন তামিম ইকবাল। তাতে বাংলাদেশও উঠে...
৭ ঘন্টা ৯ মিনিট আগে
ভাস্কর্যটি সুপ্রিম কোর্টের বর্ধিত ভবনের সামনে পুনঃস্থাপন

ভাস্কর্যটি সুপ্রিম কোর্টের বর্ধিত ভবনের সামনে পুনঃস্থাপন

সুপ্রিম কোর্টের মূল প্রাঙ্গণ থেকে সরিয়ে নেওয়া ভাস্কর্যটি কোর্টের বর্ধিত...
৭ ঘন্টা ২২ মিনিট আগে মন্ত্যব্য
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info